প্রস্তুতি বিহীন রাবি ছাত্রলীগের সম্মেলন, প্রেসরিলিজে কমিটির আভাস!

প্রকাশিত: নভেম্বর ১০, ২০২২; সময়: ৪:৪৭ অপরাহ্ণ |

আবু সাঈদ সজল, রাবি: নেতাকর্মীদের দীর্ঘ অপেক্ষার পর আগামী ১২ নভেম্বর রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি) ছাত্রলীগের সম্মেলনের ঘোষনা দেয় কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ। সম্মেলনের তারিখ ঘোষনার পরে ৯৩ জন পদপ্রত্যাশী নেতাকর্মী সিভি জমা দেন। এবং নিজেদের অবস্থান জানান দিতে পদপ্রত্যাশীরা অনুসারীদের নিয়ে নিয়মিত দিচ্ছে শোডাউন, লোবিং এবং তদবির চালিয়ে যাচ্ছেন। কিন্তু নির্ধারিত সময়ে সম্মেলন হওয়ার কথা থাকলেও রাবি শাখা ছাত্রলীগ নেতৃবৃন্দের তেমন কোন প্রস্তুতি লক্ষ্য করা যাচ্ছে না। ১২ নভেম্বর এই গুরুত্বপূর্ণ ইউনিটে সম্মেলনের কথা থাকলেও সম্মেলনের মাঠ এখনও অপ্রস্তুত। এনিয়ে তৈরী হয়েছে বিভিন্ন ধূম্রজাল।

পদপ্রত্যাশী নেতাকর্মীরা বলছেন, নেতৃত্ব নির্বাচনে সম্মেলন একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। এই সময়ে রাবি ছাত্রলীগের বর্তমান নেতৃবৃন্দের কোনো প্রস্তুতি আমরা দেখছি না। সম্মেলনের জন্য এখনও সাজেনি রাবি। আমরা প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে কমিটি দেয়ার আভাস পাচ্ছি। শেষ সময়ে এরকম ঘটনা দুঃখজনক।

কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের সূত্রে জানা গেছে, ১২ নভেম্বর যেকোনো সময় প্রেসবিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে রাবি ছাত্রলীগের কমিটি ঘোষনা হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

২৬ তম সম্মেলনের প্রস্তুতির বিষয়ে রাবি শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ফয়সাল আহমেদ রুনু বলেন, কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ আসবেন কি না তারা এখনও আমাদেরকে কনফার্ম করেনি। এখন তারা যদি না আসে তাহলে তো কোন কিছুই করা সম্ভব না। আমাদের কনফার্ম করলে আমরা অবশ্যই সম্মেলনের জন্য আনুষাঙ্গিক সকল প্রস্তুতি নিতাম। যদি কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ আসে, সম্মেলন হয় তাহলে আমরা জানিয়ে দিব।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতা ও কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের মুক্তিযোদ্ধা ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক মেহেদী হাসান তাপস বলেন, সম্মেলনের আয়োজন করা সম্পূর্ণ বিশ্ববিদ্যালয়ের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব। তারা প্রয়োজন মনে করলে অবশ্যই প্রস্তুতি নিবে।

এর আগে, রাবি শাখা ছাত্রলীগের নতুন কমিটি গঠনের জন্যে পদ প্রত্যাশীদের সাত কার্যদিবসের মধ্যে জীবনবৃত্তান্ত জমা দেওয়ার নির্দেশ দিয়ে এক বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে আগামী ১২ ই নভেম্বর (রোববার) রাবি ও রুয়েট শাখার সম্মেলনের তারিখ নিশ্চিত করেন ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি আল-নাহিয়ান খান জয় ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য।

নেতৃত্বের দৌড়ে এগিয়ে আছেন যারা: 

বর্তমান কমিটির সহ-সভাপতি কাজী আমিনুল ইসলাম লিংকন, সাংঠনিক সম্পাদক মেহেদী হাসান মিশু, মুশফিক তাহমিদ তন্ময়, এনায়েত হক রাজু, প্রশিক্ষণ বিষয়ক সম্পাদক আসাদুল্লা-হিল-গালিব, ধর্মবিষয়ক উপ-সম্পাদক তাওহীদুল ইসলাম দুর্জয়, কার্যনির্বাহী সদস্য আল মুক্তাদির তরঙ্গ, মাদারবকশ হলের সহ-সভাপতি সাজ্জাদ হোসাইন ও শাহ মখদুম হলের সভাপতি তাজবিউল হাসান অপূর্ব। এর বাইরেও অনেকের নাম শোনা যাচ্ছে।

উল্লেখ্য, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সর্বশেষ শাখা সম্মেলন হয় ২০১৬ সালের ডিসেম্বরে । ওই কমিটির মেয়াদ পাঁচ বছর আগেই শেষ হয়। কিন্তু এর মধ্যে আর নতুন কমিটি হয়নি। এক বছর মেয়াদী কমিটি ছয় বছর দায়িত্ব পালন করে। এতে নিষ্ক্রিয় হয়ে অনেক নেতাকর্মী ক্যাম্পাস ত্যাগ করেছেন।

আভোর/এসএ/এমআর

উপরে