অপরাধ ও দূর্নীতিদেশজুড়ে

নওগাঁয় বিয়ের প্রলোভনে বালিকাকে মওলানার একাধিকবার ধর্ষন

বালিকার পরিবারকে বেদম মারপিট: মামলা দায়ের

নওগাঁ প্রতিনিধিঃ নওগাঁয় এক নাবালিকাকে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তুলে একাধিকবার শারীরিক সম্পর্ক গড়ে তোলার পর অন্যত্র বিয়ের চেষ্টায় বাধা দেয়ায় ঐ বালিকার পরিবারের সকল সদস্যদের মারপিট করে মারাত্মক আহত করা হয়েছে। ঘটনাটি সদর উপজেলার দুবলহাটি ইউনিয়নের ফতেপুর গ্রামে সংঘটিত হয়েছে। এ ব্যপারে নওগাঁ থানায় মারপিটের মামলা নিলেও ধর্ষন মামলা নিতে অস্বীকার করায় মোকাম বিজ্ঞ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনাল-১, নওগাঁয় সে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

মামলাসুত্রে জানা গেছে উক্ত গ্রামের প্রভাবশালী ব্যক্তি মোঃ রাহেদুল ইসলামের পুত্র মুফতি মওলানা মোঃ সেতু (২৫) একই গ্রামের দরিদ্র পিতা মোঃ মাসুদ রানার কন্যা মাতাসাগর মাদ্রাসার ৬ষ্ঠ শ্রেনীর ছাত্রী মোছাঃ মিথিলা (১৫) এর সাথে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলে। গত ২ আগষ্ট’২০২০ তারিখে প্রেমের সুত্র ধরে বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগ নিয়ে উক্ত সেতু কৌশলে মিথিলাকে তার বাড়িতে ডেকে নিয়ে আবারো বিয়ে করবে আশ্বাস দিয়ে ধর্ষন করে। সেই থেকে বেশ কয়েকবার তারা শারীরিক ভাবে মিলিত হয়।

কিন্তু হঠাৎ করে গত ১৪ আগষ্ট মুফতি মওলানা সেতু তার পরিবারের লোকজনের সাথে বিয়ে করতে অন্যত্র গমন করার সময় মিথিলার পরিবারের লোকজন জানতে পেরে তাদের বাধা দেয়। এ সময় তারা সংগঠিত হয়ে মিথিলা, তার বাবা, ফুফুসহ সকলকে লাঠি সোটা ইত্যাদি নিয়ে হামলা চালায়। এতে মিথিলার বাবা, ফুফসহ বেশ কয়েকজন মারাত্মক আহত হয়। তাদের হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে হয়।

এ ব্যপারে থানায় মামলা করতে গেলে পুলিশ নানারকম টাল বাহানা করে মামলা নিতে অস্বীকৃতি জানায়। এর মধ্যে উক্ত মুফতি মওলানা সেতুর পরিবার কখনও ৫ লাখ টাকা যৌতুকের বিনিময়ে বিয়ে করার প্রস্তাব দেয়। আবার কখনও সব কিছু অস্বীকার করে হুমকী ধামকী অব্যাহত রাখে। দীর্ঘদিন থানায় মামলা দায়ের করার জন্য ঘুরে ঘুরে অবশেষে গত ২৫ আগষ্ট মারপিটের মামলা নং ৫২,মারপিটের একটি মামলা নিলেও ধর্ষন মামলা নিতে অস্বীকৃতি জানায়। ফলে বাধ্য হয়ে উক্ত মিথিলার ফুফু বাদী হয়ে ২ সেপ্টেম্বর’২০২০ মোকাম বিজ্ঞ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনালে একটি মামলা দায়ের করেন। মামলা নং ৩৭৪/তারিখ ০২-০৯-২০২০ ইং।

এবিষয়ে মুফতি মওলানা সেতুর সাথে ফোনে য়োগাযোগ করলে তাঁর ফোন নাম্বার বন্ধ করে রাখা হয়েছে। কিন্তু তার বাবা রহিদুল ইসলাম এর সাথে কথা বললে তিনি বলেন থানায় মামলা দায়ের করার আগে অনেক বার তাদের বিয়ের প্রস্তাব দিলেও তারা মামলা দায়ের করেছেন। তিনি আরও বলেন মামলাতে আমার বা আমার ছেলের কি করতে পারে সেটা দেখবো আইনে যে স্বাস্তী হবে সেটা আমরা মেনে নিবো বলে জানান।

এবিষয়ে নওগাঁ পুলিশ সুপার প্রকৌশলী আব্দুল মান্নন মিয়া বিপিএম তিনি বলেন, আমি মামলা নাম্বার পাইলে প্রয়োজনীয় আইন গত ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন বলে জানান তিনি।

Tags

এ জাতীয় আরো খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
You cannot copy content of this page
Close
Close