বিরামপুরে সেচের পানি দিয়ে আমন ধান রোপন

প্রকাশিত: ১২:২২ অপরাহ্ণ, আগস্ট ১, ২০২১

বিরামপুরে সেচের পানি দিয়ে আমন ধান রোপন

 

বিরামপুর (দিনাজপুর) প্রতিনিধি:

দিনাজপুরের বিরামপুরে অনাবৃষ্টি ও খরার কবলে পড়ে কৃষক তার জমিতে গভীর নলকূপের পানি সেচ দিয়ে চাষ করে আমন ধান রোপন করছেন।
বিগত বছরগুলোতে দেখা গেছে এসময় আমনের ক্ষেত জুড়ে থৈ থৈ পানি, এবছর বর্ষা মৌসুমে পর্যাপ্ত বৃষ্টি না হওয়ায় ও প্রখর রোদ থাকায় জমির পানি শুকিয়ে গেছে।

বিরামপুর পৌরসভার দেবীপুর দওলাপাড়া গ্রামের কৃষক মোঃ আসাদুল ইসলাম জানান আমার নিজের কোন জমি নেই, আমি অন্যের জমিতে বর্গা চাষী, দীর্ঘদিন যাবৎ আমি এই জমিতে ধান চাষ করি বৃষ্টির পানিতে।

এবার অনাবৃষ্টি ও খরার জন্য এই জমি আমাকে গভীর নলকূপ থেকে পানি নিয়ে জমিতে আমন ধান রোপন করতে হচ্ছে, এজন্য আমার বাড়তি অর্থ খরচ হবে।

শ্রাবণ মাস প্রায় শেষ হতে চললেও পর্যাপ্ত বৃষ্টির পানির অভাবে কৃষকরা তাঁদের আমন ধানের চারা রোপন করতে হিমশিম খাচ্ছে। গ্রাম বাংলায় একটি প্রবাদ আছে, ‘শ্রাবণের ১৬ ও ভাদ্র মাসের ১৩, এর মধ্যে যত পারো আমন চারা রোপন করো।

বিরামপুর উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ নিক্সন চন্দ্র পাল বলেন, জমিতে পানি না থাকায় একদিকে যেমন আমন আবাদে বিলম্ব হচ্ছে অন্যদিকে উপকারও হবে। জমিতে পানি না থাকায় কৃষকদের আগাম চাষের পরামর্শ দেয়া হচ্ছে। এতে জমির যেমন আগাছা দমন হবে। তেমনি বৃষ্টি হলে চাষকৃত জমি উর্বর হবে। এতে কৃষকরা লাভবান হবেন বলে জানান তিনি।

তীব্র খরার কারণে জমিতে পানি না থাকার কথা স্বীকার করে তিনি বলেন, জুলাই থেকে ২০ আগস্ট পর্যন্ত আমন রোপনের সময়। এখনই আমন রোপনের উপযুক্ত সময় চলছে।

এসময়ের মধ্যে বৃষ্টিপাত না হলে কৃষকদের বিকল্প উপায়ে সেচ দিয়ে জমিতে আমন রোপনের পরামর্শ দেয়া হবে। তবে অনেক কৃষকই পুকুর বা ডোবা থেকে শ্যালো মেশিন দিয়ে পানি সেচ দিয়ে আমন রোপন করছেন। আবার কেউ কেউ বিদ্যুৎ চালিত পাম্প দিয়েও পানি সেচ দিয়ে আমন রোপন করছেন।

কৃষি অফিসার আরো বলেন, উপজেলার ৭টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভায় এবার ১৭ হাজার ৪’শত ১১ হেক্টর জমিতে আমন রোপনের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে। আমন আবাদ বৃদ্ধির লক্ষ্যে উপজেলার ৭’শত ৩০জন ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষকের মাঝে কৃষি প্রণোদনার সার ও বীজ বিতরণ করা হয়েছে।

ফেসবুকে আমরা

পুরাতন সব সংবাদ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

এই মাত্র পাওয়া