অপরাধ ও দূর্নীতিএক্সক্লুসিভ নিউজশিক্ষা

শালাদের ধর ধর বলে পুলিশের ধাওয়া (ভিডিও)

রাবিতে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের ওপর লাঠিচার্জ

রাবি প্রতিনিধি: জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে চলমান দূর্নীতিবিরোধী আন্দোলনে ছাত্রলীগের হামলার প্রতিবাদে মহাসড়ক অবরোধকালে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের উপর পুলিশের হামলার ঘটনা ঘটেছে।

পুলিশের সাথে ধস্তাধস্তি

এতে ৪ জন শিক্ষার্থী আহত হয়। পরে আহতরা বিশ্ববিদ্যালয়ের চিকিৎসা কেন্দ্রে চিকিৎসা নেন। এছাড়া আব্দুল্লাহ শুভ নামে এক শিক্ষার্থীকে আটক করেন তারা। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকের সামনে ঢাকা-রাজশাহী মহাসড়ক অবরোধকালে এ ঘটনা ঘটে।

আটককৃত শিক্ষার্থীর শুভ নর্থ বেঙ্গল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থী বলে জানা গেছে।
এঘটনায় আহত রাবি শিক্ষর্থীরা হলেন, মাজহারুল আলম, মোরশেদ আলম, আব্দুল মজিদ অন্তর এবং শাহরিয়ার রিদম।

জানা গেছে, শিক্ষার্থীরা বিকেল ৫টায় প্রধান ফটকে শান্তিপূর্ণভাবে তাদের আন্দোলন চালিয়ে যায়। এতে বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েকজন শিক্ষক-কর্মচারীরা সংহতি জানিয়ে তাদের সঙ্গে আন্দোলনে যোগ দেন। পরে শিক্ষার্থীরা মহাসড়ক অবরোধ করলে পুলিশ তাদের বাঁধা প্রদান করে। কিন্ত বাঁধা উপেক্ষা করে যানবাহন থামিয়ে দিলে পুলিশ তাদের উপর হামলা চালায় এবং তাদেরকে ছত্রভঙ্গ করে দেয়। এ সময় পুলিশ শালাদের ধর ধর বলে তাদেরকে ধাওয়া করে।

পুলিশি হামলা

এদিকে মহাসড়ক অবরোধকালে রাস্তার দু’পাশে দীর্ঘ যানযটের সৃষ্টি হয়। পরে নগরীর মতিহার জোনের এসি মাসুদ রানা এসে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের রাস্তা থেকে সরে যেতে বলেন।

কিন্তু আন্দোলনকারীরা রাস্তা থেকে না সরে যানবাহনগুলোকে যেতে বাঁধা প্রদান করলে পুলিশ তাদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। এ সময় একজনকে আটক করে পুলিশ।
এ বিষয়ে মতিহার জোনের এসি মাসুদ রানা জানান, শিক্ষার্থীদের রাস্তা থেকে সরে যেতে অনুরোধ করেছি। কিন্তু তারা না সরলে ছত্রভঙ্গ করে দিয়েছি। তবে একজন আটকের বিষয়টি অস্বীকার করেন তিনি।

মতিহার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হাফিজুর রহমান বলেন, আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরাই আমাদের উপর হামলা করেছে। এ সময় একজনকে আটক করা হয়েছে।
তবে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. লুৎফর রহমান এ বিষয়ে কিছু জানেন না বলে জানান তিনি।

পুলিশের হামলার পুরো ভিডিও

Tags

এ জাতীয় আরো খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close