এক্সক্লুসিভ নিউজশিক্ষা

রাবিতে সি ইউনিটে প্রথম হওয়া আবরার ভর্তি হবেন বুয়েটে !

উমর ফারুক, রাবি: রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের বিজ্ঞান, জীব ও ভূ-বিজ্ঞান, কৃষি ও প্রকৌশল অনুষদভুক্ত ‘সি’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় প্রথম হয়েছেন আলোচিত আবরার মাহমুদ নামে আরেক শিক্ষার্থী। আবরার মাহমুদ রাজশাহী কলেজের শিক্ষার্থী ছিলো। তার বাড়ী রাজশাহী নগরীর উপশহরে । তার রাবিতে ভর্তি পরীক্ষা রোল ২১৪৪৬।

তবে এর আগে ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষে তিনি বাংলাদেশ প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (বুয়েটে) চান্স পেয়েছেন। বুয়েটে তার অবস্থান ১৯৩ তম। তাই তিনি সেখানেই ভর্তি হবেন বলে জানিয়েছেন।

এ বিষয়ে প্রথম হওয়া আবরার মাহমুদ মুঠোফোনে আলোকিত ভোরকে বলেন, আমার খুব ভালো লাগছে রাবিতে ১ম স্থান অধিকার করেছি। অনুভূতি ভাষায় প্রকাশ করা সম্ভব না। আমি বুয়েটে চান্স পেয়েছি তাই এত টেনশন ছিলো না। আমি যেহেতু বুয়েটে ভালো অবস্থানে আছি তাই বুয়েটেই ভর্তি হবো।

বুধবার বিকেল ৩টার দিকে ‘সি’ ইউনিটের ফলাফল প্রকাশ করা হয়। ‘সি’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার চিফ কো-অর্ডিনেটর ড. একরামুল হামিদ স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ ফলাফল প্রকাশ করা হয়েছে।

এর আগে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) ২০১৯-২০ সেশনের প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষায় প্রথম স্থান অধিকার করেন কাজী আবরার মাহমুদ। আদমজী ক্যান্টনমেন্ট কলেজের এই শিক্ষার্থী স্থাপত্য অনুষদে মেধা তালিকায় (সম্মিলিত) শীর্ষ স্থান অধিকার করেছেন।

গত ৬ অক্টোবর বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ হত্যাকাণ্ডের প্রেক্ষাপটে ক্ষোভ ও শোকের পরিস্থিতির মধ্যেই ১৪ অক্টোবর বুয়েটের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। এবার রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের
রাবির ‘সি’ ইউনিটের ফল প্রকাশিত বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ভর্তি বিজ্ঞপ্তিতে প্রকাশিত শর্তানুযায়ী এমসিকিউ পরীক্ষায় প্রাপ্ত নম্বরের ভিত্তিতে আসন সংখ্যার ১০ গুণ পরীক্ষার্থীর লিখিত পরীক্ষার উত্তরপত্র মূল্যায়ন করা হয়েছে।

উত্তীর্ণ ভর্তিচ্ছুদের আগামী ১৫ থেকে ২০ নভেম্বরের মধ্যে অনলাইনে ভর্তির বিভাগের পছন্দক্রম পূরণ করতে বলা হয়েছে। কোনো ভর্তিচ্ছু নির্ধারিত সময়ের মধ্যে পছন্দক্রম পূরণ করতে না পারলে ‘সি’ ইউনিটে তার প্রার্থিতা বাতিল বলে গণ্য হবে এবং ‘সি’ ইউনিটের কোনো বিভাগে ভর্তির আর কোনো সুযোগ থাকবে না।

এছাড়া পছন্দক্রম পূরণ করার সময় কোনো ভর্তিচ্ছু কোনো বিভাগে ভর্তি হতে আদৌ আগ্রহী না হলে সেটি পছন্দক্রম থেকে বাদ রাখতে পারবে। তবে পছন্দক্রম প্রদানের পর সেই অনুযায়ী কোনো বিভাগে ভর্তির জন্য নির্বাচিত হলে সেই বিভাগে অবশ্যই ভর্তি হতে হবে, নতুবা ‘সি’ ইউনিটে তার প্রার্থিতা বাতিল বলে গণ্য হবে এবং পরবর্তীতে ‘সি’ ইউনিটের কোনো বিভাগে ভর্তির আর সুযোগ থাকবে না।

পরবর্তীতে আসন শূন্য হওয়া সাপেক্ষে শুধুমাত্র ভর্তি হওয়া ছাত্র-ছাত্রীদের বিভাগ পছন্দের ক্রম অনুসারে স্বয়ংক্রিয়ভাবে বিভাগ পরিবর্তন করা হবে। এজন্য প্রার্থীকে বিশ্ববিদ্যালয়ে আসতে হবে না, নোটিশে জানতে পারবে।পছন্দক্রম পূরণকারী ভর্তিচ্ছুদের মধ্যে মেধাক্রম অনুসারে প্রথম নির্বাচন তালিকা ৩ ডিসেম্বর বিকেলে বিশ্ববিদ্যালয় ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হবে। প্রথম নির্বাচিত তালিকায় নির্বাচিতদের ২৫ নভেম্বর থেকে ১ ডিসেম্বরের মধ্যে ভর্তি হতে হবে।

এ ছাড়া শূন্য আসনের জন্য অপেক্ষমান তালিকা থেকে মেধা ও পছন্দক্রম অনুসারে ভর্তির জন্য নির্বাচন করা হবে, যার সম্ভাব্য সময়সূচি যথাসময়ে প্রকাশ করা হবে।
এদিকে, যেসব উত্তীর্ণ ভর্তিচ্ছু পরীক্ষার সময় শারীরিক শিক্ষা ও ক্রীড়া বিজ্ঞান বিভাগে ভর্তি হতে আগ্রহ প্রকাশ করে বৃত্ত পূরণ করেছে তাদের ব্যবহারিক পরীক্ষা সংক্রান্ত নোটিশ আগামী ১১ নভেম্বর বিকেলে প্রকাশ করা হবে। ব্যবহারিক পরীক্ষায় অনুপস্থিত পরীক্ষার্থী উক্ত বিভাগে ভর্তির কোনো সুযোগ পাবে না, তবে অন্যান্য বিভাগগুলোতে ভর্তির সুযোগ বহাল থাকবে।

Tags

এ জাতীয় আরো খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close