‘মেধাস্বত্ব অধিকার সুরক্ষায় যুগোপযোগী আইন করা হবে’-সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী

প্রকাশিত: ৬:৫৯ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ২৭, ২০২১

‘মেধাস্বত্ব অধিকার সুরক্ষায় যুগোপযোগী আইন করা হবে’-সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা: সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী জনাব কে এম খালিদ বলেছেন, মেধাস্বত্ব আইন সুরক্ষায় সরকার প্রয়োজনীয় সকল সহযোগিতা করবে। সরকার এ সংশ্লিষ্ট আইন সমূহকে যুগোপযোগী করার চেষ্টা করছে।

 

বিশ্ব মেধাস্বত্ব দিবস ২০২১ উপলক্ষে ইন্টেলেকচুয়াল প্রপার্টি এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (আইপিএবি)-এর আয়োজনে গত সোমবার (২৬ এপ্রিল) এক ওয়েবিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

 

প্রতিমন্ত্রী আইপিএবির কার্যক্রমের ভূয়সী প্রশংসা করেন এবং সকল সেক্টরের মেধাস্বত্ব অধিকার সুরক্ষায় সমন্বিতভাবে কাজ করার উপর গুরুত্ব আরোপ করেন।

 

এসময় ওয়েবিনারে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন শিল্প সচিব কে এম আলী আজম ও সংস্কৃতি সচিব বদরুল আরেফিন এবং সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন এফবিসিসিআই এর সাবেক সিনিয়র ভাইস-প্রেসিডেন্ট ও বেঙ্গল কমার্শিয়াল ব্যাংক লিমিটেডের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন। এসোসিয়েশনের সভাপতি শামসুল আলম মল্লিক এফসিএ স্বাগত বক্তব্য দেন।

 

ওয়েবিনারে অনুষ্ঠানের মূল প্রতিপাদ্য সম্পর্কিত বিশেষ প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন পরিকল্পনা কমিশনের সদস্য (সচিব) শরিফা খান, বিশেষ উপস্থাপনা করেন ডিপিডিটির রেজিস্টারার ও অতিরিক্ত সচিব মোহাম্মদ আব্দুস সাত্তার, কপিরাইট অফিসের রেজিস্টারার ও অতিরিক্ত সচিব জাফর রাজা চৌধুরী এবং এসোসিয়েশনের ডিরেক্টর জেনারেল আজিজুর রহমান এফসিএস।

 

আজিজুর রহমান তার উপস্থাপনায় ই-কমার্স, আইপি ডিজিটাইজেশন, এনফোর্সমেন্ট, নতুন উদ্যোক্তা ও উদ্যোগ বিষয়গুলো নিয়ে আইপিএবি থেকে বিভিন্ন উদ্যোগএর পরিকল্পনা তুলে ধরেন।

 

উপস্থাপনায় ই-কমার্স, আইপি ডিজিটাইজেশন, এনফোর্সমেন্ট, নতুন উদ্যোক্তা ও উদ্যোগ বিষয়গুলো নিয়ে আইপিএবি থেকে বিভিন্ন উদ্যোগের পরিকল্পনা তুলে ধরেন এবং এর মাধ্যমে ব্যাপকহারে নকল ও শুল্ক ফাঁকি দেয়া পণ্যের যে অবাধ বিচরণ তা মোকাবিলার সাথে সাথে সরকারের রাজস্ব খাতও যে উপকৃত হবে সে বিষয়ে আলোচনা করেন।

 

ওয়েবিনারে দ্বিতীয় অংশে, সাবেক সচিব কে এইচ মাসুদ সিদ্দিকী’র পরিচালনায় একটি প্যানেল ডিসকাশন অনুষ্ঠিত হয়। এতে আলোচক হিসেবে অংশগ্রহণ করেন এমসিসিআই ও এফবিসিসিআই-এর ডিরেক্টর গোলাম মাইনুদ্দিন, সাবেক সচিব শহিদুল হক, অধ্যাপক ড. হারুনুর রশিদ, সাবেক অতিরিক্ত সচিব জালাল আহমেদ, পুলিশের অতিরিক্ত মহাপরিদর্শক মোশাররাফ হোসাইন বিপিএম, এনবিআর-এর সদস্য ও কাস্টমস এক্সসাইজ ভ্যাট আপিলেট ডিভিশনের প্রেসিডেন্ট ড. মো: শহিদুল ইসলাম এবং কম্পিউটার সমিতির সভাপতি শহিদুল মুনির।

 

বক্তাদের বক্তব্যে আইপি সেক্টরের সমস্যার সাথে সাথে যে বিপুল সম্ভাবনা রয়েছে সে সম্পর্কে বিস্তারিতভাবে উঠে আসে।

ফেসবুকে আমরা

পুরাতন সব সংবাদ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১  
এই মাত্র পাওয়া