খেলাধুলাফুটবল

ব্যালন ডি অর জয়ের দৌড়ে এগিয়ে মেসি

স্পোর্টস ডেস্ক: গত এক বছরের ব্যক্তিগত নৈপুণ্যের জন্য বর্ষসেরা পুরস্কারের দু’টির একটি উঠেছে লিভারপুল ডিফেন্ডার ভার্জিল ভ্যান ডাইক এবং একটি উঠেছে লিওনেল মেসির হাতে। ইউয়েফার সেরা ফুটবলারের তকমা নিজের করে নিয়েছেন ভ্যান ডাইক আর ফিফার বর্ষসেরা ফুটবলারের অ্যাওয়ার্ড জিতেছেন লিওনেল মেসি। বাকি রয়েছে ফ্রান্স ফুটবল ফেডারেশনের ব্যালন ডি’অর জয়ীর নাম ঘোষণার। আর এই পুরস্কার বিতরণ করা হবে আগামী ডিসেম্বরে।

ফুটবল বিশ্বের ব্যক্তিগত অ্যাওয়ার্ডের মধ্যে সব থেকে মর্যাদাপূর্ণ পুরস্কারটি উঠবে কার হাতে? শুরু হয়েছে তা নিয়ে আলোচনা, তর্ক-বিতর্ক। কেউ বলছেন জিতবেন লিওনেল মেসিই, কেউ বলছেন এই পুরস্কারের দাবীদার ভার্জিল ভ্যান ডাইক আবার কেউ বলছে জুভেন্টাসের হয়ে সিরি আ এবং পর্তুগালের হয়ে উয়েফা নেশনস লিগ জয়ী ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। তবে ফ্রেন্স বিশ্বকাপ জয়ী এবং প্যারিস সেন্ট জার্মেইর (পিএসজি) তারকা কিলিয়ান এমবাপে তার তালিকায় এগিয়ে রেখেছেন লিওনেল মেসিকেই। এই তারকার ভোটটি পড়ছে লিওনেল মেসির জন্যই কারণ তিনি মনে করেন ২০১৯ ব্যালন ডি’অর প্রাপ্য কেবল মেসিরই।

২০১৯ সালের ব্যালন ডি’অরের ৩০ জনের মনোনীত সংক্ষিপ্ত তালিকায় রয়েছেন এমবাপে নিজেও। তবে নিজের থেকে বেশি দাবীদার হিসেবে মেসিকেই এগিয়ে রেখেছেন এমবাপে।

চলতি বছরেরই সেপ্টেম্বরে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো এবং ভার্জিল ভ্যান ডাইককে পেছনে ফেলে লিওনেল মেসি জিতে নিয়েছিলেন ফিফা দ্য বেস্ট অ্যাওয়ার্ড। আর ফিফা দ্য বেস্ট’র আগে লিভারপুলের ডাচ ডিফেন্ডার ভ্যান ডাইক জিতেছিলেন উয়েফা বর্ষসেরা। দুই পুরস্কারের জন্য সংক্ষিপ্ত তিনজনের তালিকায় ছিলেন রোনালদো, মেসি ও ভ্যান ডাইক।

জার্মান ম্যাগাজিন ডের স্পেগেলকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে এমবাপে বলেন, ‘নি:সন্দেহে এবছর ব্যালন ডি অর জয়ের দৌড়ে সবার থেকে এগিয়ে আছেন মেসি। এ বছরের সেরা ফুটবলার ছিলেন তিনিই।‘

টানা দশ বছর ধরে ব্যালন ডি অর নিজেদের করে রেখেছেলন লিওনেল মেসি এবং ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। তবে গেল বছর এই দুইজনের একছত্র আধিপত্য ভেঙে ব্যালন ডি’অর নিজের করে নেন রিয়াল মাদ্রিদের ক্রোয়েশিয়ান মিডফিল্ডার লুকা মদ্রিচ। গত বছর ব্যালন ডি’অরের তালিকায় পঞ্চম স্থানে ছিলেন বার্সেলোনা ফরোয়ার্ড মেসি। আর এই সিদ্ধান্তের জন্য সমালোচনাও শুনতে হয়েছিল ব্যালন ডি’অর কমিটিকে।

Tags

এ জাতীয় আরো খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close