হারের জন্য মোদি-শাহকে দুষছেন বিজেপি নেতারা

প্রকাশিত: ৩:২৯ অপরাহ্ণ, মে ২, ২০২১

হারের জন্য মোদি-শাহকে দুষছেন বিজেপি নেতারা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: পশ্চিমবঙ্গে বিধানসভা নির্বাচনে মমতা ব্যানার্জির নেতৃত্বাধীন তৃণমূল কংগ্রেস বিপুল সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে টানা তৃতীয়বারের মতো সরকার গঠন করতে যাচ্ছে। আনন্দবাজার পত্রিকার খবর অনুযায়ী, রোববার বেসরকারি ফলাফলে ২৯২ আসনের মধ্যে তৃণমূল পেয়েছে ২০৭ আসন। আর ৮১টি আসনে বিজেপি জয় লাভ করেছে।

এদিকে পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচনের শাসক দল বিজেপির ফল ভালো না হওয়ায় শীর্ষ নেতৃত্বের দিকে আঙুল তোলা শুরু করেছেন দলীয় নেতাকর্মীদের একাংশ। রাজ্যের এক শীর্ষ নেতার ভাষ্য, ‘সেনাপতি হয়েছিলেন যারা, জিতলে তারা কৃতিত্ব নিতেন। এখন হারের দায়ও নিতে হবে।’

বিজেপির ওই নেতা প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও অমিত শাহদের নাম উল্লেখ না করলেও তাদের দিকেই যে আঙুল তুলেছেন তার ইঙ্গিত স্পষ্ট। শুরু থেকেই পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচনের দায়িত্ব রাজ্যের হাত থেকে নিয়ে নেয় কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব।

এ নিয়ে তখন রাজ্য বিজেপির অনেক নেতা অভিযোগ তুলেছিলেন। তারা বলেছিলেন, ‘আমরা জিতলে রাজ্যের সংগঠনেই জিতব। আর হারতে হলে কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের তামঝামের জন্য। রোববার (২ মে) ভোট গণনার দিন সকালে বিপুল ব্যবধানে তৃণমূলের জয়ের আভাস মেলার পরই সেই নেতারা আরও স্পষ্ট করে একই অভিযোগ তুলছেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক রাজ্য বিজেপির এক শীর্ষ নেতা আনন্দবাজারকে বলেছেন, ‘জেলায় জেলায় অন্য রাজ্য থেকে আসা পর্যবেক্ষকরা স্থানীয় নেতৃত্বের প্রতি অবিশ্বাস দেখিয়েছেন।

বাংলার রাজনীতি সম্পর্কে ধারণা না থাকলেও নিজেদের রাজ্যের অভিজ্ঞতা বাংলায় প্রয়োগ করতে চেয়েছেন। বারবার বলেও কাজ হয়নি। যে ফল হতে চলেছে তাতে এটা স্পষ্ট যে, সেটা ঠিক হয়নি।’

বিজেপির অন্দরের পারস্পরিক দোষারোপ এখনও সামনে না এলেও এমন আলোচনাও শুরু হয়েছে যে,

অনেক জায়গাতেই দলের পুরনো নেতাকর্মীদের ওপর ভরসা না রেখে নবাগতদের অতিরিক্ত গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে।

রাজ্যে বিজেপির এক ক্ষুব্ধ নেতার কথায়, ‘প্রার্থী ঠিক করার ক্ষেত্রেও রাজ্য নেতাদের কথা অনেক সময়ই শোনা হয়নি।

তাতে নিচুস্তরের কর্মীদের মনোবল ভাঙা হয়েছিল। এখন এটা স্পষ্ট হয়ে গেল যে, সমর্থকদের মনোবলও ভেঙে গিয়েছিল।’

ফেসবুকে আমরা

পুরাতন সব সংবাদ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১  
এই মাত্র পাওয়া