রাজারহাট ইউপি নির্বাচন ঘিরে নেতাকর্মীদের মধ্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়া

প্রকাশিত: ১২:২৩ অপরাহ্ণ , ফেব্রুয়ারি ১৮, ২০২১

আব্দুল হাকিম সবুজ, রাজারহাট(কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধিঃ কুড়িগ্রাম জেলার রাজারহাট উপজেলা আওয়ামীলীগের দুটি কমিটি।শুধু উপজেলায় নয় রাজারহাট উপজেলার ৭টি ইউনিয়নে দুটি করে কমিটি রয়েছে।প্রত্যেক কমিটির স্বস্বপদের নেতারা বিভিন্ন অনুষ্ঠানে তাদের পদবী ব্যবহার করে আসছেন।

গত ২০১৯ সালের ৩০শে ডিসেম্বর দুপুরে রাজারহাট কারিগরি কলেজ মাঠে কুড়িগ্রাম জেলা আওয়ামীলীগের প্রয়াত সাবেক সভাপতি আমিনুল ইসলাম মঞ্জু মন্ডল ও সাধারণ সম্পাদক ( বর্তমান সভাপতি)আলহাজ্ব জাফর আলী উপস্থিত থেকে আওয়ামীলীগের (একাংশ) কাউন্সিলের মাধ্যমে আলহাজ্ব শাহের আলী কে সভাপতি ও আলহাজ্ব আবুনুর মোঃআখতারুজ্জামান কে সাধারণ সম্পাদক করে কমিটি ঘোষণা করেন।

জেলা আওয়ামিলীগের ঘোষিত কমিটির সাধারণ সম্পাদকের নেতৃত্বে আওয়ামীলীগের একাংশ উক্ত কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক হিসেবে নিজেদের বৈধ কমিটি হিসেবে দাবী করে আসছে,কিন্তু অপর অংশের নেতাকর্মীরা সভাপতির অনুপস্থিতে

ওই কমিটিকে পকেট কমিটি আখ্যা দিয়ে কাউন্সিল প্রত্যাখ্যান করে রাজারহাট উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব আব্দুস সালাম চাষীর নেতৃত্বে ৩০শে ডিসেম্বর ২০১৯ একই দিনে বিকেল ৫ ঘটিকায় তৃণমূল আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীরা রাজারহাট মহিলা ডিগ্রী কলেজ মাঠে কাউন্সিলের মাধ্যমে আলহাজ্ব আব্দুস সালাম চাষী কে সভাপতি ও অধ্যক্ষ আসিফ সোহরাওয়ার্দী রাজন কে সাধারণ সম্পাদক করে উপজেলা আওয়ামীলীগের কমিটি ঘোষণা করে।

এর আগে রাজারহাট উপজেলার ৭টি ইউনিয়নে রাজারহাট উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব আব্দুস সালাম চাষী ও সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব আবুনুর মোঃআখতারুজ্জামান পৃথক পৃথক কমিটি গঠন করেন।সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের সম্নয়হীনতার কারণে নিজেদের প্রভাব প্রতিপত্তি অক্ষুণ্ণ রাখতে আলাদা আলাদা কমিটি গঠন করেন।উপজেলা আওয়ামীলীগ সহ ৭ ইউনিয়নে দুটি করে আওয়ামীলীগের কমিটি থাকায় সাধারণ নেতাকর্মীদের মাঝে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে।

রাজারহাট উপজেলা আওয়ামীলীগের প্রবীন কর্মী বাদশা মিয়া বলেন সভাপতি জীবিত থাকা অবস্থায় তাকে বাদ দিয়ে কাউন্সিল হতে পারেনা।ওটা অবৈধ কাউন্সিল।আর তাছাড়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ছাড়া সাধারণ সম্পাদক একায় কিভাবে ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের কমিটি গঠন করে,সেটা আমার বোধে আসেনা।সাংবাদিকের এক প্রশ্নে জবাবে তিনি বলেন নৌকা মার্কা তো দিবেন দলের সভানেত্রী শেখ হাসিনা,তৃণমূলে দুটি করে কমিটি কে কাকে সমর্থন করবে?

তবে আমি আশাবাদী ইউপি নির্বাচনের আগে উপজেলা আওয়ামীলীগ সহ সাত ইউনিয়নের আওয়ামীলীগের কমিটির বিষয়ে দলীয় হাইকমান্ড ইতিবাচক সিদ্ধান্ত নিবেন। ঘড়িয়াল ডাঙ্গা ইউনিয়নের আওয়ামী কর্মী শরৎ চন্দ্র বলেন সামনে ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন,প্রার্থী বাছাই কোন কমিটির মাধ্যমে করা হবে,সেটা নিয়ে ধোয়াশার মধ্যে আছি কেননা উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতির একটি কমিটি ও সাধারণ সম্পাদকের একটি কমিটি।

বিদ্যানন্দ ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের প্রবীণ রাজনীতিবীদ নজির হোসেন বলেন শেখ সাবের সময় থেকে রাজনীতি করে আসছি অথচ দলে আমার কোন মুল্য নাই,এখন শুনছি ইউনিয়নে দুটি আওয়ামীলীগের কমিটি এখন কোন কমিটি বৈধ আর কোন কমিটি বৈধ নয়, সেটা কেমনে বলি। সবাই নিজেদের বৈধ কমিটির নেতা হিসেবে দাবী করে কিন্তু নৌকা মার্কার চেয়ারম্যান প্রার্থী বাছাই করবো কিভাবে।

উমর মজিদ ইউনিয়নের যুবনেতা জোবেদুল তালুকদার উপজেলা আওয়ামীলীগ সহ সাত ইউনিয়নের দুটি করে আওয়ামীলীগের কমিটির বিষয়ে দলীয় হাইকমান্ডের নিকট দ্রুত সমস্যা নিরসনের দাবী জানান।

এবিষয়ে উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি ও শহিদ পরিবারের সদস্য আজগর আলী বলেন উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের যে কমিটিগুলোর অনুমোদন দিয়েছে সেগুলো বৈধ কমিটি,কেননা উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি,সহ সভাপতি,যুগ্ন সম্পাদক ও সাংগঠনিক সম্পাদকের সাক্ষর রয়েছে উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতির অনুমোদিত ইউনিয়ন কমিটিগুলোতে।

এব্যাপার রাজারহাট উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব আবুনুর মোঃআখতারুজ্জামান বলেন সভাপতি নৌকার বিপক্ষে অবস্থান নিয়ে বিদ্রোহী প্রার্থীর পক্ষে ভোট করায় দলীয় হাইকমান্ড তাকে কাউন্সিল আয়োজনে দায়িত্ব দেননি,তাই তাকে বাদ দিয়েই আমরা জেলা আওয়ামীলীগের নির্দেশে কাউন্সিল সম্পূর্ণ করি।

সভাপতি আলহাজ্ব আব্দুস সালাম চাষী বলেন আমি ৩০শে ডিসেম্বর ২০১৯কাউন্সিলের পর আমার প্রাণ প্রিয় নেত্রী বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সভানেত্রী মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আপার কাছে যাই এবং রাজারহাট উপজেলা আওয়ামীলীগের দুটি কমিটি গঠনের বিষয়ে অবগতি করি,

তিনি বিষয়টি দেখবেন বলে আমাকে জানান এবং সেই সাথে আওয়ামীলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য (সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক) মোজ্জামেল হক ভাই ও প্রেসিডিয়াম সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানক (সাবেক যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক)ভাইয়ের সাথে দেখা করতে বলেন,আমি তাদের সাথে দেখা করে নেত্রীর সাথে সাক্ষাতের বিষয় অবগত করলে তারা আমার কাছে সব শুনে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের কথা বলেন।

রাজারহাট উপজেলা আওয়ামীলীগের পৃথক পৃথক দুটি কমিটির বিষয়ে কুড়িগ্রাম জেলা আওয়ামীলীগের নব নির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক আমান উদ্দিন আহমেদ মঞ্জু বলেন রাজারহাট উপজেলা আওয়ামীলীগের ত্যাগী নেতাকর্মীদের বাদ দিয়ে তো দল শক্তিশালী হবে না।জেলা কমিটি টা এখনো পূর্ণাঙ্গ হয়নি,পূর্ণাঙ্গ কমিটি হলে রাজারহাটের কমিটির বিষয়ে হাছান মাহমুদ ভাই ও স্বপন ভাইয়ের সাথে কথা বলে যাতে ত্যাগী বঞ্চিত নেতাকর্মীরা বাদ না যায় সেই ব্যবস্থায় করবো।।

প্রিয় পাঠক, আপনিও লিখতে পারেন আমাদের পোর্টালে। কোন ঘটনা, পারিপাশ্বিক অবস্থা, জনস্বার্থ, সমস্যা ও সম্ভাবনা, বিষয়-বৈচিত্র বা কারো সাফল্যের গল্প, কবিতা,উপন্যাস, ছবি, আঁকাআঁকি, মতামত, উপ-সম্পাদকীয়, দর্শনীয় স্থান, প্রিয় ব্যক্তিত্বকে নিয়ে ফিচার, হাসির, মজার কিংবা মন খারাপ করা যেকোনো অভিজ্ঞতা লিখে পাঠান সর্বোচ্চ ৩০০ শব্দের মধ্যে। পাঠাতে পারেন ছবিও। মনে রাখবেন দৈনিক আলোকিত ভোর.কম পোর্টালটি সকল শ্রেণী পেশার মানুষের জন‌্য উন্মুক্ত। তাছাড়া, স্বভাবতই আপনি নানান ঘটনার স্বাক্ষী। শেয়ার করুন আমাদের। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের ইমেলে পাঠিয়ে দিন। কোন এলাকা, কোন দিন, কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই দেবেন। আপনার পাঠানো খবর অথবা লেখা মান সম্পন্ন এবং বস্তুনিষ্ঠ হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে। লেখা পাঠানোর ইমেইল- dailyalokitovor@gmail.com