রাজশাহী মহানগর ছাত্রলীগের সম্মেলন: কে আসছেন নেতৃত্বে?

প্রকাশিত: ৬:০০ অপরাহ্ণ , ফেব্রুয়ারি ২৩, ২০২১

রাজশাহী প্রতিনিধি: দীর্ঘ সাড়ে ৬ বছর পর আগামীকাল বুধবার সকাল ১০ টায় রাজশাহী কলেজের শহীদ মিনার চত্ত্বরে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে রাজশাহী মহানগর ছাত্রলীগের সম্মেলন। বার্ষিক এ সম্মেলন ঘিরে পদ পেতে বহু আগে থেকেই দৌড়-ঝাঁপ করতে দেখা গেছে নগর ছাত্রলীগের নেতাদের। তবে কারা নেতৃত্বে আসছেন তা দেখতে অপেক্ষা করতে হবে আরো একটি দিন। দিনটিকে ঘিরে রঙিন ব্যানার ফেস্টুনে ছেয়ে গেছে নগরীর গুরুত্বপূর্ণ সড়ক ।

বর্তমানে মহানগর ছাত্রলীগের পদ পেতে প্রায় ডজন খানেক ছাত্রনেতার নাম শোনা যাচ্ছে। তার মধ্যে সভাপতি পদপ্রত্যাশীরা হলেন- নূর মোহাম্মদ সিয়াম, আবদুল্লাহ আল দ্বীপ, পিয়ারুল ইসলাম পাপ্পু, তাসকিন পারভেজ সাতিল ও ফজলে রাব্বি।

সাধারণ সম্পাদক পদপ্রত্যাশীরা হলেন- সিরাজুম মুবিন সবুজ, উপ ধর্ম বিষয়ক সম্পদক ও রাজশাহী কলেজ ছাত্রলীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক রাশিক দত্ত, সাংগঠনিক সম্পাদক হাসান রেজা, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক আরেফিন পারভেজ বন্ধন, তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক সাফফাত হাসান রিয়াদ, যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক মারুফ হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক ও পলিটেকনিক ছাত্রলীগের সভাপতি মেহেদী হাসান রিগান এবং নগর ছাত্রলীগের সদস্য ও রাজশাহী কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নাইমুল হাসান নাঈম।

এদের মধ্যে সাধারণ সম্পাদক পদে নেতৃত্বের লড়াইয়ে যারা এগিয়ে আছেন তাদের মধ্যে অন্যতম হলেন রাজশাহী মহানগর ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সিরাজুম মুবিন সবুজ। পরিচ্ছন্ন ইমেজ ও বিনয়ী এই ছাত্রনেতা হিসেবে তার পরিচিতি রয়েছে।  তিনি মুক্তিযোদ্ধা ও আওয়ামী পরিবারের সন্তান। তারপরই আলোচনা ও সমর্থনে এগিয়ে আছেন আরেফিন পারভেজ বন্ধন এবং রাশিক দত্ত।  এর বাইরেও অনেকের নাম শোনা যাচ্ছে।

খোজ নিয়ে জানা গেছে, মহানগর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক পদ প্রার্থী ও রাজশাহী কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নাইমুল হাসান নাঈম একাধিকবার নানা অপরাধ ও অপকর্মে জড়িয়ে নিজেকে ও সংগঠনকে সমালোচিত করেছেন। তার বিরুদ্ধে রাজশাহী কলেজের গাছ কেটে বিক্রি করা, চর্টারসেলে জিম্মি করে মুক্তিপন আদায়সহ মাদক সংশ্লিষ্টতার অভিযোগ রয়েছে।

এবং সিয়ামের বিরুদ্ধে অভিযোগ তার বাবা থানা পর্যায়ের আওয়ামীলীগের নেতা হলেও বিভিন্ন সময় দল পরিবর্তন করে এখন আওয়ামী লীগের রাজনীতি করছেন।  দ্বিপ ও পাপ্পুর বিরুদ্ধে অভিযোগ রয়েছে তাদের বয়স ২৯ পেরিয়ে গেছে।

অভিযোগের বিষয়ে সভাপতি প্রার্থী দ্বিপ জানান, তার বয়স সামান্য পেরিয়ে গেছে। তবে সময় মতো সম্মেলন না হওয়ায় এবং করোনা পরিস্থিতির কারণে সংগঠন বিষয়টিকে বিবেচনায় নিবে। তিনি আরো জানান, সম্মেলনে নতুন নেতৃত্বে যেই আসুক না কেন তিনি দলের স্বার্থে একত্রে কাজ করবেন।

সভাপতি প্রার্থী নূর মোহাম্মদ সিয়াম জানান, তার বিরুদ্ধে আনা সকল অভিযোগ ভিত্তিহীন। তার বাবা ৯০ এর দশক থেকেই আওয়ামী লীগের রাজনীতির সাথে জড়িত। বিষয়টি সকলেই জানেন। ওয়ার্ড পর্যায়ের আওয়ামী লীগ থেকে শুরু করে এখন তিনি থানা পর্যায়রে নেতা। তিনি বা তার পরিবার যদি সত্যি আওয়ামী লীগ ছাড়া অন্য কোন মতদর্শের সাথে সম্পৃক্ত থাকতো তবে এতদিন তাদের পক্ষে পদ ধরে রাখা সম্ভব ছিলো না। সিয়াম জানান, দলীয় বিষয়ে তিনি কখনো কারো সাথে আঁতাত করেননি। তার কাছে সবসময় দলের স্বার্থই উর্ধ্বে।

সভাপতি প্রার্থী পিয়ারুল ইসলাম পাপ্পুর সাথে কথা বলতে তার মোবাইলে কল করা হলে তিনি কথা বলেননি। অন্যদিকে নাইমুল হাসান নাঈমের মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করলেও তিনি রিসিভ করেন নি।

এর আগে ২০১৪ সালের ১০ সেপ্টেম্বর রাজশাহী মহানগর ছাত্রলীগের কমিটি গঠন করা হয়। রকি কুমার ঘোষকে সভাপতি, মাহমুদ হাসান রাজিবকে সাধারণ সম্পাদক ও সাংগঠনিক সম্পাদক পদে পাঁচ জনসহ মোট ১৬১ সদস্যের কমিটি ঘোষণা করে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ। নির্বাচনের পরের বছর ২০১৫ সালে মেয়াদ শেষ হয় বর্তমান কমিটির।

ছাত্রলীগের গঠনতন্ত্র অনুযায়ী কমিটির মেয়াদ শেষ হবার ৯০ দিনের মধ্যে নতুন কমিটি করার নির্দেশনা থাকলেও তা কার্যকর করা হয়নি। নেতৃত্বের গুণাবলী থাকার পরেও এতদিন পদ জুটেনি বহু ছাত্র নেতার। এতে হতাশও হয়েছিলেন তারা। অনেকটাই নিস্ক্রিয়ও হয়ে পড়ছিল নগর ছাত্রলীগ। অবশেষে আশা দেখছেন পদ প্রত্যাশীসহ মহানগর ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ।

নতুন কমিটিতে সুযোগ পেলে রাজশাহী মহানগর ছাত্রলীগকে গতিশীল করার লক্ষ্যে কাজ করতে চান নেতারা। পাশাপাশি অছাত্র, বিবাহিত, গঠনতন্ত্র বিরোধী কমিটি বাতিল করে নগর ছাত্রলীগকে নতুন করে চাঙ্গা করতে চান তারা।

ইতোমধ্যে সম্মেলন সফল করতে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের বন ও পরিবশে বিষয়ক উপকমিটির সদস্য, জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য এবং বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি ডা. আনিকা ফারিহা জামান অর্ণাকে আহ্বায়ক, রকি কুমার ষোষকে যুগ্ম আহ্বায়ক ও মাহমুদ হাসান রাজিবকে সদস্য সচিব করে গঠন করা হয়েছে প্রস্তুতি কমিটি।

এছাড়া প্রস্তুতি কমিটির অধীনে সম্মেলনের সার্বিক দেখভালে গঠন করা হয়েছে আইন শৃঙ্খলা, প্রচার, অর্থ, চিকিৎসা, অভ্যর্থনা, আপ্যায়ন, দপ্তর, সাংস্কৃতিক, মঞ্চ, সাজ সজ্জাসহ বিভিন্ন উপ-কমিটি।

সম্মেলনের প্রস্তুতি নিয়ে মহানগর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মাহমুদ হাসান রাজিব বলেন, সম্মেলনকে সার্বিকভাবে সফল করতে আমরা প্রস্তুতি সভা করেছি। মহানগর ছাত্রলীগের সকলস্তরের কর্মীদের নিয়ে সম্মেলন সফল করতে আইন শৃঙ্খলা, প্রচার, অর্থ, চিকিৎসা, অভ্যর্থনা, আপ্যায়ন, সাংস্কৃতিক, সাজ সজ্জাসহ বিভিন্ন কমিটি ও উপ-কমিটি গঠন করা হয়েছে।

তারা সার্বিকভাবে সম্মেলন সফল করতে কাজ করবেন। যারা পদপ্রত্যাশী আছেন তাদের নিজেদের প্রচারণার বাইরেও মহানগর ছাত্রলীগের উদ্যোগে নগরীর বিভিন্ন জায়গায় ব্যানার, ফেস্টুনসহ বিভিন্ন সাজসজ্জা করা হয়েছে। সর্বপরি একটি সফল সম্মেলনের মাধ্যমে দায়িত্ব থেকে অব্যাহতির ইচ্ছা ব্যক্ত করেন তিনি।

বুধবার সকাল ১০টায় রাজশাহী কলেজে সম্মেলনের উদ্বোধন করবেন কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয়। সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ও মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন।

এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন মহানগর আওয়ামীগের সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার। প্রধান বক্তা হিসেবে থাকবেন কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য।

এছাড়াও মহানগর ছাত্রলীগের সভাপতি রকি কুমার ষোষের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মাহমুদ হাসান রাজিবের সঞ্চালনায় সম্মেলনে সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি ও রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ডাঃ আনিকা ফারিহা জামান অর্ণা, ছাত্রলীগের গণশিক্ষা সম্পাদক আব্দুল্লাহ হীল বারী,

মহানগর ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি শফিকুজ্জামান শফিক, সাবেক সাধারণ সম্পাদক মীর তৌহিদুর রহমান কিটু, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি হাবিব খান, সাধারণ সম্পাদক মেরাজুল ইসলাম মেরাজ,

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি গোলাম কিবরিয়া, সাধারণ সম্পাদক ফয়সাল আহমেদ রুনু, রুয়েট ছাত্রলীগের সভাপতি নাইম রহমান নিবিড় ও সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী মাহফুজুর রহমান তপু।

প্রিয় পাঠক, আপনিও লিখতে পারেন আমাদের পোর্টালে। কোন ঘটনা, পারিপাশ্বিক অবস্থা, জনস্বার্থ, সমস্যা ও সম্ভাবনা, বিষয়-বৈচিত্র বা কারো সাফল্যের গল্প, কবিতা,উপন্যাস, ছবি, আঁকাআঁকি, মতামত, উপ-সম্পাদকীয়, দর্শনীয় স্থান, প্রিয় ব্যক্তিত্বকে নিয়ে ফিচার, হাসির, মজার কিংবা মন খারাপ করা যেকোনো অভিজ্ঞতা লিখে পাঠান সর্বোচ্চ ৩০০ শব্দের মধ্যে। পাঠাতে পারেন ছবিও। মনে রাখবেন দৈনিক আলোকিত ভোর.কম পোর্টালটি সকল শ্রেণী পেশার মানুষের জন‌্য উন্মুক্ত। তাছাড়া, স্বভাবতই আপনি নানান ঘটনার স্বাক্ষী। শেয়ার করুন আমাদের। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের ইমেলে পাঠিয়ে দিন। কোন এলাকা, কোন দিন, কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই দেবেন। আপনার পাঠানো খবর অথবা লেখা মান সম্পন্ন এবং বস্তুনিষ্ঠ হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে। লেখা পাঠানোর ইমেইল- dailyalokitovor@gmail.com