পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ফিচারশিক্ষা

করোনা সচেতনতায় গানের পাখি রাবি শিক্ষক আমিনুল

আবু সাঈদ সজল, রাবিঃ বিশ্ব যখন অদৃশ্য এক শক্তি,কোভিড-১৯ করোনা ভাইরাসের সাথে যুদ্ধ করতে করতে প্রায় পরাস্ত । বড় বড় দেশগুলোতে যখন থমকে গেছে সব কিছু। মৃত্যুপুরীতে পরিণত হয়েছে প্রায় সব দেশ ।

বিশাল জনবহুল দেশ বাংলাদেশেও তার ব্যতিক্রম নয়। এর সংক্রমণ থেকে বাঁচতে দেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। সারাদেশে লকডাউন সিস্টেম চালু করে ঘরেই অবস্থানের জন্য নির্দেশ দিচ্ছে সরকার। দেশের এই সংকটে সচেতনতার বিকল্প নাই।

এ মহামারী থেকে সচেতন করতে দেশের সুশীল সমাজ বিভিন্ন পদক্ষেপ নিচ্ছে। পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলো বন্ধ থাকায় অলস সময় পার করছেন অধিকাংশ শিক্ষক। কিন্তু রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি) সমাজবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক ও বিশ্ববিদ্যালয় সৈয়দ আমীর আলী হলের প্রাধ্যক্ষ ড. আমিনুল ইসলামের কর্মকান্ডে ফুটে উঠেছে ভিন্ন চিত্র।

এই মহামারীর সংকটকালীন সময়ে মানুষকে সচেতন করতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক/ইউটিউবে একের পর এক গান, কবিতা উপহার দিচ্ছেন তিনি। তার লেখা গানগুলোতে বিখ্যাত শিল্পিরা কন্ঠ দিয়ে গানগুলোতে দিচ্ছে নতুন মাত্রা। এর আগে মুজিববর্ষ নিয়ে লেখা তার একটি গানে শিল্পি এস আই টুটুল কন্ঠ দেন। যা ছিল চোঁখে পড়ার মতো।

তার গানগুলোর শিরোনামও ছিল অসাধারণ। যেমনঃ – আমরা করবো জয়, করোনা হবে পরাজয়, করোনাকে করিনা ভয়, বাঙালি করোনায় হেরে যাবার জাতি নয়। (www.smule.com) এ তার লেখা গানগুলো পাওয়া যাবে।

এছাড়া, করোনা সচেতনায় কবিতা লিখে সুনাম কুড়িয়ে চলেছেন এই শিক্ষক। তার লেখা কিছু কবিতার চুম্বক অংশ পাঠকদের জ্ঞাতার্থে তুলে ধরা হলো।-

১.এই করি কামনা,
দুরে থাকুক করোনা।
এভাবে আর রবোনা,
পূরণ হোক বাসনা ।
মানবো সামাজিক দূরত্ব,
তবুও রবে বন্ধুত্ব।
মেনে চলবো স্বাস্থ্যবিধি,
দূর হবে রোগব্যাধি।
জননেত্রীর নির্দেশনা,
মেনে চললে ফলবে সোনা।
সাহায্যের হাত খোলা রাখি
দূরে রেখেও কাছে থাকি।
মানুষ হয়ে বেঁচে থাকি,
দেশকে মোরা ভালবাসি।

২.করোনা বীক্ষণ
মানুষের কষ্টে আকাশ ক্রমান্বয়ে শোকে শোকাতুর হচ্ছে;
মহাকাশের তারকা, রবি, শশীও নিস্প্রভ হতে চলছে ;
কাছের মানুষগুলোকেও লক্ষ কোটি মাইল দূরে মনে হচ্ছে;
কুশল বিনিময়ে ফোন করলেও অভাবের কথা শুনিয়ে যাচ্ছে;
ত্রাণ বণ্টণের নামেও কিছু অসাধূ সাধুর বেশে লোপাট করছে;
ধানকাটতেও কৃষকের আলো কেউ কেউ তছনছ করে দিচ্ছে;
দিবানিশি আল্লাহ/ঈশ্বর/ ভগবানকে কায়মনে ডাকা হচ্ছে;
জনাকীর্ণ লোকালয়ে যেন কোথাও কেউ নেই মনে হচ্ছে;
ক্ষুদ্র একটি জীবানু মানুষকে পরাজিত করার চেষ্টা করছে;
সমগ্র মানব জাতির কাছে করোনাকে সর্বনাশা মনে হচ্ছে;
মানবসদৃশ কিছু প্রাণী করোনার র্দীঘায়ূও কামনা করছে;
কিছু প্রাণী যাদেরকে এসময়েও মানুষের মত দেখাচ্ছে,
মানুষের জন্য নিজের জীবন বাজি রেখে কাজ করে যাচ্ছে;
তাঁরা করোনা যোদ্ধা, মহামানব, তাঁরা কেউ মরেও হাসছে।

৩.ইয়া রহমান ইয়া রহিম ইয়া গাফ্ফার ইয়া গফুর
লা ইলাহা ইল্লাল্লাহ মুহাম্মাদ রাসূলুল্লাহ
ও মালিক! তোমার নামের ওসিলায়
দূর করে দাও করোনা।
ইয়া জালীল ইয়া হাকিম ইয়া জাহির ইয়া বাতিন
লা ইলাহা ইল্লাল্লাহ আহমাদ রাসূলুল্লাহ
ও খালিক! জ্বালিয়ে তোমার নামের নূর
পুড়িয়ে দাও করোনা।
ইয়া আজীজ ইয়া বাছীর ইয়া হাফিজ ইয়া রাউফ
লা ইলাহা ইল্লাল্লাহ মুহাম্মাদ রাসূলুল্লাহ
ওগো সব করনেওয়ালা
তাড়িয়ে দাও করোনা।
ইয়া ওয়ালী ইয়া রাকীব ইয়া ওয়াদুদ ইয়া মাজিদ
লা ইলাহা ইল্লাল্লাহ নূর মুহাম্মাদ সাল্লাল্লাহ
তুমি তো মহান আল্লাহ
ধ্বংস করো করোনা।

৪.এ কোন আজব হালে বিবেক করছি শেষ
এ কোন আজব হালে
বিবেক করছি শেষ!
নিজের কাজে মন না দিয়ে
অন্যের কাজে দিচ্ছি বেশ।
এ কোন আজব হালে
বিবেক করছি শেষ!
চাটুকারিতা লোকদেখানো
বামে করে ডানে বুঝানো
কে যে আসল কে যে নকল
এ ব্যাখ্যার নেইতো শেষ।
কখনওবা ফাঁকা বুলি
কখনও কথার ফুলজুরি
ধান্দাবাজি মাথায় নিয়ে
যাচ্ছেতাই করছি বেশ।
এ কোন আজব হালে
বিবেক করছি শেষ!
করোনাতেও নইকো ভীত
চুরি ঘুষে পেটটা স্ফীত
ছাই মাটিতে ভরবে পেট মোর
পেলে পরপারের আদেশ।
এ কোন আজব হালে
বিবেক করছি শেষ!
নিজের কাজে মন না দিয়ে
অন্যের কাজে দিচ্ছি বেশ।
এ কোন আজব হালে
বিবেক করছি শেষ!

তার গান,কবিতা গুলো ফেইসবুকে পোস্ট করার সাথে সাথে বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষক-ছাত্রসহ বিভিন্নমহলে সাড়া ফেলে।

বিশ্বের এই ক্রান্তিলগ্নে ব্যতিক্রমী প্রয়াসের বিষয়ে জানতে চাইলে ড. আমিনুল ইসলাম বলেন, বিশ্বব্যাপী করোনা ভাইরাস মহামারী রূপ নিয়েছে। করোনা বিশ্বায়ন ঠেকাতে মানুষ যুদ্ধ করছে প্রতিনিয়ত। বাংলাদেশেও এটি ভয়াবহ রূপ নিয়েছে। এ যুদ্ধে আমরা জয়ী হতে চাই এবং করোনাকে পরাজিত করতে চাই।তাই মানুষকে সচেতন করার প্রয়াস থেকে গান, কবিতা, প্রার্থনা সংগীত লেখা ও উপস্থাপন করা। আশা করি গানটি সকলকে উৎসাহ যোগাবে। এর মাধ্যমে মানুষ সচেতন হবে।

এবং করোনা নিয়ে যারা কাজ করছে অর্থাৎ করোনা যোদ্ধারা উৎসাহিত হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

সেইসাথে এই সংকট কাটিয়ে একটি নতুন সকাল দেখার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন এই শিক্ষক।

Tags

এ জাতীয় আরো খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close